দিনে দিনে এগিয়ে চলেছি আমরা। আধুনিকতার ছোঁয়ায় থলি নিয়ে আর ঘুরে ঘুরে বাজার করতে হয়না। মাউস কিংবা স্মার্ট ফোনের এক কমান্ডেই পছন্দের জিনিস আপনার দরজায়।

ডিজিটাল দুনিয়ার ছাদে দাঁড়িয়ে আমরা আমাদেরকে এমন এক পর্যায়ে নিয়ে গেছি সেখানে আমরা সমস্ত কাজ অনলাইনে করে থাকি, তা সে জিনিস কেনা বেচাই হোক বা বাড়ির ইলেকট্রিক বিল দেওয়া।

সবক্ষেত্রেই আমরা কাজে লাগাচ্ছি ডেবিট কার্ড,UPIএড্রেস,ক্রেডিট কার্ড,নেট বাঙ্কিং এর মত ভার্চুয়াল লেনদেনের পদ্ধতি।
সবক্ষেত্রেই আমাদের পেরোতে হয় কতকগুলি ধাপ। যেমন ডেবিট কার্ড এর ক্ষেত্রে OTP(One Time Password) এর ব্যবহার।
এই কার্ড আবার ভিন্ন ভিন্ন হয়। আমরা যারা মাস্টার কার্ড ব্যাবহার করি তাদেরকে অনলাইন পেমেন্ট এর জন্য চার ডিজিটের পার্সোনাল ATM পিন দিতে হয় ব্যাংক কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইটে।
এই সময় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যে OTP জেনারেট করে তার মেয়াদ ১৫ মিনিট থাকে এবং ওই ১৫ মিনিট আপনার একাউন্ট ট্রেস করার জন্য যথেষ্ট। তাই সব সময় কয়েকটি সাবধানতা অবলম্বন করতে হয়।
১)খেয়াল রাখতে হবে OTP যেন কোনো ভাবেই পাবলিক না হয়ে যায়।

২)দেখে নেবেন যে আপনি আপনার OTP আপনার ব্যাংকের ওয়েবসাইটেই দিচ্ছেন কিনা। কারণ অনেক সময় আপনি যে সার্ভার ব্যাবহার করেন পেমেন্টএর জন্য সেটা ফেক হতে পারে।

৩)দেখে নেবেন OTP কি আপনার ব্যাংক থেকেই এসেছে,অনেক সময় ওই OTP জেনারেট করে কিছু ফেক পেমেন্ট রিসিভার ।

৪)কখনো কাউকে আপনার ATM কার্ডের CVV নম্বর পাবলিক করবেন না ।

৫)নেট ব্যাংকিং পরিষেবা ব্যাবহার করার আগে দেখে নেবেন আপনি আপনার ইউসার আইডি(user id) ও পাসওয়ার্ড(password) সঠিক স্থানে দিচ্ছেন কিনা ।

৫)খেয়াল রাখুন আপনার ব্যাবহার করা ব্রাউজার সেফ তো !
এরকম কয়েকটি পদ্ধতি অবলম্বন করলে আপনার ব্যাঙ্কিং সুরক্ষা আপনি নিজেই নিতে পারেন,এবং এই পরিষেবা চালিয়ে যেতে পারেন ।

মোবাইলে নিয়মিত খবর পড়তে এইখানে ক্লিক করুন Whatsapp

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here