রতন গিরি,মেদিনীপুর:পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালকে বেসরকারিকরণ না করার প্রতিবাদে ৫ জানুয়ারি জেলার হাসপাতাল ও জনস্বাস্থ্য রক্ষা সংগঠন মেদিনীপুর শহরের ফিল্ম সোসাইটি হলে একটি গণ কনভেনশনের আয়োজন করল। সেখান থেকে আওয়াজ উঠল শালবনী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালকে কোনো বেসরকারি সংস্থ্যার হাতে তোলা যাবে না।
বক্তারা বলেন, সম্প্রতি শালবনী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার জন্য চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর ফলে এলাকার মানুষের ফ্রি-তে চিকিৎসার ব্যবস্থা চিরতরে বন্ধ হতে চলেছে। তাঁদের অভিযোগ, কোনো স্বাধীন দেশের সরকার স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা ক্ষেত্রকে ব্যক্তি মালিকের অর্থ উপার্জনের মৃগয়াক্ষেত্রে পরিনত করতে পারে না। যদিও মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী বলছেন যে এই হাসপাতাল সরকারের হাতেই থাকবে,বেসরকারি সংস্থাটি মারফৎ আরো ভালো পরিষেবা দেবে। কিন্তু আমরা লক্ষ্য করেছি পূর্বতন রাজ্য সরকার ঢাকুরিয়ার নিরাময় পলিক্লিনিক, যোধপুর পার্কের অরবিন্দ সেবাকেন্দ্র, যাদবপুরের কে.এস রায় টিবি হাসপাতালকে একই যুক্তিতে বেসরকারিকরণ করেছিল। বর্তমানে সেখানে আমরি, কেপিসি হাসপাতালের মতো বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা চলছে।

এই কনভেনশনে সভাপতিত্ব করেন মেদিনীপুর শহরের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা: এম. সি. লোহ, এছাড়াও বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক ডাঃ অশোক সামন্ত, মেডিক্যাল সার্ভিস সেন্টারের রাজ্য সম্পাদক ডাঃ অংশুমান মিত্র, অধ্যাপক জগবন্ধু অধিকারী, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক শ্রীজ্ঞানেন্দ্রনাথ ভূঞ্যা, শিক্ষক শ্রী অতীন্দ্রনাথ বেরা, বিশিষ্ট নাগরিক শ্রী দীপক বসু নার্সেস ইউনিটি-র রাজ্য সম্পাদিকা সিস্টার পার্বতী পাল, শালবনী হাসপাতালের নার্স সিস্টার পাপিয়া টুডু।

এদিন সরকারি হাসপাতাল বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে হাসপাতাল ও জনস্বাস্থ্য রক্ষা সংগঠনের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় একটি শক্তিশালী কমিটি গঠিত হয়। নবনির্বাচিত জেলা কমিটির সভাপতি হন প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক শ্রী জ্ঞানেন্দ্রনাথ ভূঞ্যা,সম্পাদক হন অধ্যাপক প্রভঞ্জন জানা।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here