বিজেপি নেত্রীর সিদ্ধান্তে অপমানিত হয়েছেন বিজেপি’র ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার আই.টি ইন চার্জ! নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার পরে, পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় ‘অপমানিত’ ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার আই.টি ইন চার্জ শান্তনু সামন্ত! শান্তনুবাবুর পাঠানো খোলা চিঠিটি তুলে ধরা হলো-

[quote style=’1′ cite=”]

আমি শান্তনু সামন্ত,BJP ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার IT IN-CHARGE..
প্রায় ৯-মাসের চেষ্টায় বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি রতন দত্তের নেতৃত্বে এবং রাজ্য IT সেলের সহযোগিতায় প্রতিটি মন্ডল স্তর থেকে বেশিরভাগ বুথ পর্যন্ত IT সেলের টিম গঠন করেছি, অসংখ্য Whatsapp Group, Facebook page & group গঠন হয়েছে।।
এরপরেও আজ সকালে আমাকে ফোন করে দুমাসের বর্তমান জেলা সভানেত্রী অন্তরা ভট্ট্যাচার্য জানালেন, আমাকে আজ থেকে দ্বায়িত্ব মুক্ত করা হলো কিন্তু কারন জানতে চাইলে উনি আমার সাথে হিটলারি মানসিকতা পোষণ করিলেন ।। বিজেপির সংবিধান ও আদর্শ অনুযায়ী
মাথা নত করে সিনিয়রদের নির্দেশ পালন করা প্রথম থেকেই শিখেছি কিন্তু ব্যক্তিকেন্দ্রিক তোষামোদ করার প্রশ্নই ওঠেনা।।

জেলা IT হিসাবে বিগত প্রায় দুই মাস দেখছি জেলাতে শুধুমাত্র সাংগঠনিক পরিবর্তন হচ্ছে কিন্তু আগের ৯ মাসের মতো তৃণমূলের সাথে সত্যিকারের লড়াই করার জন্য কোনো রাজনৈতিক কার্যক্রম হচ্ছে না।

এখন কিছু জিজ্ঞাস্য থাকেঃ–

(১) ভারতীয় জনতা পার্টিতে কি ফোনের মাধ্যমে দ্বায়িত্ব দেওয়া অথবা মুক্ত করা যায়….?

(২) দায়িত্ব মুক্ত করার কারণ জানানো হলনা কেন….?

(৩) কাজের লোক আর কাছের লোক—এই রাজনীতি আর কত দিন চলবে….?

(৪) পরিবর্তন আমরা সরকারের চেয়েছিলাম, নিজের সংগঠনের নয়।।

(৫) এখন প্রশ্ন বিজেপি ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার মতো এ পরিবর্তনের খেলা কী সারা রাজ্যেই চলছে ? তবে শুধুই কী সাজো সাজো রব না সত্যিকারের আর একটা পরিবর্তন হবে যেখানে সারা রাজ্যের মানুষ যখন চাইছেন ! রাজ্যের এবং কেন্দ্রীয় নেতাদের ভাবার কী সময় এখনো আসেনি ? এ মরণ খেলা আর কতোদিন চলবে ?

[/quote]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here